‘২০-২৫ বছর পর বোঝা যাবে গান টিকে থাকার বিষয়টি’

জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী আঁখি আলমগীর। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে ধারাবাহিকভাবে শ্রোতাপ্রিয় বেশ কিছু গান উপহার দিয়েছেন তিনি। অ্যালবামের মতো করে প্লেব্যাকেও ব্যস্ত সেই শুরু থেকে। এদিকে অ্যালবাম ও সিনেমার গানের বাইরে স্টেজ শো নিয়েই বেশি ব্যস্ত এ শিল্পী। ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে একইরকম চাহিদা নিয়ে দেশ-বিদেশের স্টেজ মাতিয়ে যাচ্ছেন নিজের গান দিয়ে। এতটা দীর্ঘ সময় পরও স্টেজে আাঁখির তুলনা কেবল আঁখিই।
প্রায় প্রতিদিনই শো নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয় তাকে। সব মিলিয়ে কেমন চলছে আপনার বর্তমান দিনকাল? উত্তরে আঁখি আলমগীর বলেন, বেশ ভালো। পরিবার ও গান নিয়ে ভালো কাটছে সময়। আসলে ভালো থাকার চেষ্টা করতে হয়। তাহলেই হয়। আমিও সেটাই করি। বর্তমান ব্যস্ততা কি নিয়ে? আঁখি বলেন, ব্যস্ততাতো অবশ্যই গান নিয়ে। স্টেজ শো করছি নিয়মিত। মধ্যে ব্যস্ততা খানিক কম ছিলো। কারণ বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিলো সারা দেশে।  এরপর এলো রোহিঙ্গা ইস্যু। পাশাপাশি আবার বৃষ্টি। তবে এখন পরিস্থিতির অনেক উন্নতি হয়েছে। সামনেতো স্টেজের মৌসুম? আঁখি বলেন, হ্যা। শীতের মৌসুম চলে আসছে। এই সময় স্টেজ শো-এর আয়োজন সব চেয়ে বেশি হয়। সারা বছরই আমার শো-এর ব্যস্ততা থাকে। আর গত ২০ বছর ধরে আমার স্টেজ ব্যস্ততা একইরকম। তবে প্রতি বছরই শীতে স্টেজ শোর সংখ্যা বেড়ে যায়। এবারও আশা করছি সেটাই হবে। কারণ শোর আয়োজন বেশি হলে সবার জন্যই ভালো। নতুন গানের কি খবর? আঁখি বলেন, চলতি বছর কয়েকটি গান প্রকাশ হয়েছে। এর মধ্যে আসিফ আকবরের সঙ্গে দুটি দ্বৈত গান রয়েছে। এগুলোর সাড়া বেশ ভালো। আরও কিছু গান করার কথাবার্তা চলছে।  সে গানগুলোও করবো যদি ব্যাটে বলে মিলে যায়। আর সিনেমার গান? আঁখি বলেন, সিনেমার গানতো নিয়মিতই করা হচ্ছে। প্লেব্যাক করতে আমার খুব ভালো লাগে। সিনেমার গানে একটা চ্যালেঞ্জ থাকে। কারণ গল্প ও দৃশ্যের বিষয়টি মাথায় রেখে গাইতে হয়। সর্বশেষ আমার বাবার (স্বনামধন্য চলচ্চিত্র অভিনেতা আলমগীর) পরিচালিত নতুন ছবি ‘একটি সিনেমার গল্প’তে গান গেয়েছি। এ গানটির সুর করেছেন কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী রুনা লায়লা আন্টি। এটা আমার জন্য পরম পাওয়া। চলতি প্রজন্মের শিল্পীদের গান কি শোনা হয়? কেমন লাগে? আঁখি বলেন, অবশ্যই শোনা হয়। ভালোও লাগে। ভালো ও খারাপ দুই ধরনের গানই হচ্ছে এখন। তবে মেধাবী শিল্পীদের গান কিন্তু ভালো হচ্ছে। সেই গানগুলো টিকেও থাকবে। আর একটি বিষয় হলো তরুণদের উৎসাহ দিতে আমি খুব পছন্দ করি। তবে অবশ্যই যাদের মেধা রয়েছে। আমি মনে করি এই সময়ে অনেক তরুণ-তরুণী ভালো গান করছে। তবে একটি বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে। সেটা কি? আঁখি বলেন, মৌলিক গানের উপর জোর দিতে হবে। এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অনেককেই দেখি অন্যের গানই কেবল স্টেজে গেয়ে যায়। এটা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। নিজের মৌলিক জনপ্রিয় গান থাকতে হবে। আর সেটাই স্টেজে গাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। আসলে অন্যের গান গাওয়ার মধ্যে দিয়ে কোন কৃতিত্ব নেই। তাই আমি বলবো মৌলিক গানের উপর জোর দিতে। তাহলেই সুফল পাবে পুরো সংগীত ইন্ডাস্ট্রি। অনেকেই অভিযোগ করেন এখনকার গান দীর্ঘদিন টিকছে না। এর সঙ্গে আপনি একমত? আঁখি বলেন, আসলে এটা সময়ের উপর নির্ভর করবে। গান টিকলো কি টিকলো না সেটা এখনই বলা যাবে না। সেই গানকে সময় দিতে হবে। আজ থেকে ২০-২৫ বছর পর বোঝা যাবে গান টিকে থাকার বিষয়টি। এর আগে নয়। আর ভালো কথা, সুর, সংগীত ও গায়কির গানগুলো টিকে থাকবে বলেই আমার বিশ্বাস

Read 66 times
Rate this item
(0 votes)
Published in বিনোদন
Super User

Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipiscing elit. Mauris hendrerit justo a massa dapibus a vehicula tellus suscipit. Maecenas non elementum diam.
Website: smartaddons.com

Leave a comment

Make sure you enter the (*) required information where indicated. HTML code is not allowed.

Subscribe to our newsletter

ইভেন্ট

ছবি ও ভিডিও

Style Setting

Fonts

Layouts

Direction

Template Widths

px  %

px  %