Wednesday, Sep 20 2017

 

 

 

ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক। তাকে কৃত্রিমভাবে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়েছে। এটাও তার চিকিৎসার অংশ। আনিসুল হকের এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু মানবজমিনকে জানান, মস্তিষ্কের রক্তনালীর প্রদাহ মারাত্মক। তাই ঘুম পাড়িয়ে এ চিকিৎসা দিতে হয়। এর কোনো বিকল্প নেই। গেল সপ্তাহে হাসপাতালে গিয়ে দেখলাম মেয়রের শরীরের বিভিন্ন অংশে মেডিকেল যন্ত্রাংশ এবং নাকে অক্সিজেন মাস্ক লাগানো। তিনি এপাশ-ওপাশ করতে পারেন। কিন্তু শরীরে চিকিৎসা সংশ্লিষ্ট নানান যন্ত্রাংশের সংযোগের কারণে দিক পরিবর্তন বা পাশ ফিরতে পারছেন না। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী আপনজন ছাড়া আনিসুল হকের সঙ্গে কেউ দেখা করতে পারছেন না। আনিসুলের ব্যবসায়ী বন্ধু জানান, যতটুকু জেনেছি তার শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক। তবে মাঝে মধ্যে ঘন ঘন শ্বাস নিতে দেখেছি। এর আগে গত ১৩ই আগস্ট মস্তিষ্কের রক্তনালীতে প্রদাহ নিয়ে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তি হন আনিসুল হক। এরপর থেকে তার সঙ্গে দর্শনার্থীদের সাক্ষাৎ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। কেবলমাত্র তালিকাভুক্ত ঘনিষ্ঠজন ছাড়া আর কারো সেখানে যাওয়ার সুযোগ নেই। আনিসুল হকের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশে থাকাকালীনই তিনি প্রথমবার এ রোগে আক্রান্ত হন। কিন্তু তখন রোগ নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি। এরপর পারিবারিক কাজে গত ২৮শে জুলাই লন্ডনে যাওয়ার পর আবারো অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মস্তিষ্কের রক্তনালীতে প্রদাহ ধরা পড়ে। সেখানকার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আনিসুল হক যে সমস্যায় ভুগছেন এর চিকিৎসা একটু দীর্ঘমেয়াদি। তার পুরো সুস্থ হতে আরো সময় লাগবে।

Wednesday, Sep 20 2017

ফাইল ছবি

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাংলাদেশ বিমানে তল্লাশি চালিয়ে ২০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে ঢাকা কাস্টমস।

বুধবার সকালে মালয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইট থেকে এ স্বর্ণ উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মইনুল খান।

উদ্ধার হওয়া দুই কেজি স্বর্ণের বাজারমূল্য প্রায় এক কোটি টাকা বলেও জানান তিনি।

Wednesday, Sep 20 2017

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে বাংলাদেশ। তাদের দেশে ফিরিয়ে নিতে আন্তর্জাতিক মহল থেকে চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে।

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে আছেন। মঙ্গলবার রাতে ম্যানহাটনের ম্যারিয়ট হোটেলে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দেওয়া নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। 

শেখ হাসিনা বলেন, মিয়ানমারকে বলছি, আপনাদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতে হবে। তাদের নাগরিক অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে। আজকে যারা বিপদে পড়েছে তাদের সাহায্য দেওয়া জরুরি। ১৬ কোটি মানুষকে যদি খাওয়াতে পারি, তবে ওদের কেন পারবো না? বাংলাদেশের মানুষ অনেক উদার। তারা একবেলা না খেয়ে ওদের খাওয়াবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ওআইসির মিটিংয়েও এ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তারাও এ বিষয়ে কথা বলেছেন। আমি বলেছি বিশ্বে মুসলমানরাই কেন শরণার্থী হবে? তারাও আমার সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন।

বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়ার উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তিনি এতিমের টাকা মেরে দিয়েছেন। মামলা খেয়ে ১৪০ দিন সময় নিয়েছেন। তিনি পালিয়ে থাকেন কেন? 

এ সময় প্রধানমন্ত্রী দেশের উন্নয়নের হালচাল, সরকারের নানা কার্যক্রম, বর্তমান রাজনৈতিক অবস্থা, রোহিঙ্গা ইস্যুসহ নানা বিষয়ে কথা বলেন।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর ছেলে ও তথ্যপ্রযুক্তি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

Wednesday, Sep 20 2017
 

 

তিন মন্ত্রীর সামনে বাহাসে জড়িয়েছেন চাল ব্যবসায়ীরা। একে অন্যকে দালাল বলে গালমন্দ করেন তারা। তবে একজন সিনিয়র মন্ত্রীর হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি বেশিদূর গড়ায়নি। গতকাল সচিবালয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। বৈঠকে চালের দাম কমানোর বিষয়ে সরকারি পরামর্শের প্রেক্ষিতে ব্যবসায়ীরা পাটের বস্তার পরিবর্তে প্লাস্টিকের বস্তার ব্যবহার, বন্দরে চালের ট্রাক প্রবেশে হয়রানি বন্ধের দাবি জানান। মন্ত্রীরা তাদের এ দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, দুই একদিনের মধ্যেই চালের দাম কেজিতে দুই থেকে তিন টাকা কমবে।
বৈঠকে অংশ নেয়া বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ব্যবসায়ীদের বলেছেন, যেকোনোভাবে আপনারা চাল আমদানি করুন। সরকারের তরফে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। ব্যবসায়ীদের সঙ্গে নিয়ে সরকার পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে চায়। বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, সভা শুরুর দিকে চালের মজুতসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা শুরু করেন চাল ব্যবসায়ীরা। এক পর্যায়ে বক্তব্য দিতে চেয়ার থেকে উঠে দাঁড়ান বাংলাদেশ অটোরাইস মিল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সরকারসমর্থিত পক্ষের সভাপতি খোরশেদ আলম। এসময় অপর পক্ষের নেতা আব্দুর রশিদ ও লায়েক আলী খোরশেদ আলমকে থামিয়ে দিয়ে বলেন, আপনি সরকারের দালালি করে সরকারকে বিভ্রান্ত করছেন। এ পর্যন্ত এক ছটাক চালও সংগ্রহ করতে পেরেছেন? তাহলে সরকারকে কিভাবে সাহায্য করছেন আপনি। এ সময় আব্দুর রশিদ ও লায়েক আলীর সমর্থক ব্যবসায়ীরা খোরশেদ আলমের উদ্দেশে বলেন, দালালি ছাড়েন, সরকারের গুদামে চাল দেন। এটিই হবে সরকারের বড় সহযোগিতা। পরে খোরশেদ আলম বক্তব্য দেয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। তবে আব্দুর রশিদ ও লায়েক আলী বক্তব্য দেন। বৈঠকে চালের দাম কমানোর আশ্বাস দেন চালকল মালিক, ব্যবসায়ী ও আমদানিকারকরা। চাল ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন দাবি পূরণে বাণিজ্যমন্ত্রীর আশ্বাসের পর চাল ব্যবসায়ীরা দাম কমানোর কথা জানান। খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে সরকারের পক্ষে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, সাবেক খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক ও খাদ্য সচিব মোহাম্মদ কায়কোবাদ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া ব্যবসায়ীদের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অটো মেজর অ্যান্ড হাস্কিং মিল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের এক পক্ষের সভাপতি আব্দুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক লায়েক আলী, অপর গ্রুপের খোরশেদ আলম খান, মেঘনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, সিটি গ্রুপের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমানসহ বিভিন্ন চাল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের নেতারা। বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, শুরুতেই চাল ব্যবসায়ীরা চাল আমদানিতে চটের বস্তা ব্যবহারে সরকারি বাধ্যবাধকতার বিষয়টি তুলে ধরেন। তারা বলেন, চটের বস্তায় চাল আমদানি করলে প্রতি কেজিতে এক টাকা খরচ বাড়ে। আর প্লাস্টিকের বস্তায় খরচ হয় মাত্র ১৫/১৬ পয়সা। যদি চটের বস্তা ব্যবহারের বাধ্যবাধকতা স্থগিত করা হয় তবে আমদানিতে প্রতি কেজি চালের দাম দুই টাকা কমবে। বৈঠকে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আপনারা বিভিন্ন সমস্যার কথা বলেছেন। আমাদের খাদ্যের কোনো সংকট নেই। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে যেটুকু ঘাটতি হয়েছে তা বিভিন্নভাবে জিটুজি ও সরকারিভাবে টেন্ডারের মাধ্যমে আনবো। আপনারা (চালকল মালিক ও ব্যবসায়ী) যেসব বাধার কথা বলেছেন সেগুলো দূর করার জন্য কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করব। সভায় ব্যবসায়ীরা চাল সংরক্ষণ ও পরিবহনে পাটের বস্তার পরিবর্তে প্লাস্টিকের বস্তা ব্যবহারের অনুমতি চান। প্লাস্টিকের বস্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়ার দাবি জানান। চাঁপাই নবাবগঞ্জের রহনপুর দিয়ে ট্রেনে চাল পরিবহনের অনুমতি ও ব্যবসায়ীদের হয়রানি না করারও দাবি জানান। ব্যবসায়ীদের এসব অভিযোগ শুনে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, এ মুহূর্তে চটের বস্তায় চাল আমদানির সরকারি বাধ্যবাধকতার সিদ্ধান্ত আগামী তিন মাসের জন্য স্থগিত করা হলো। এখন যে যেভাবে পারেন চাল আনেন। আমি এনবিআর ও কাস্টমসকে বলে দিচ্ছি। কেউ বাধা দেবে না। এছাড়া, ভারত থেকে জিটুজি পদ্ধতিতে চাল আমদানি করতে আমি নিজে কথা বলবো। এ সময় ব্যবসায়ীরা বাণিজ্যমন্ত্রীকে বলেন, সংকট কাটাতে চাল আমদানির শুল্ক দেরিতে কমানো হয়েছে। এছাড়া চাল ও ধান সংগ্রহে সরকার যে দাম নির্ধারণ করেছে তা অনেক কম। তখন যদি চালের দাম ৩৪ টাকা নির্ধারণ না করে ৪০ টাকা করা হতো তবে আমরা অনেক চাল দিতে পারতাম। ট্রেনে যাতে চাল আনা যায় সে পদক্ষেপ নেয়া হবে। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, দেশটা আমাদের। আমরা আপনাদের, আপনারা আমাদের। আসুন আমরা হাতে হাত মিলিয়ে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাই।

Tuesday, Sep 19 2017

মিয়ানমারের সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহের দিকে নজর রাখলে, আপনি অং সান সুচির কর্মকান্ডে বিস্মিত বা স্তম্ভিত হতে পারেন।

Page 24 of 26

যারা অনলাইনে আছেন

We have 385 guests and 38 members online

  • mohammedpowell6
  • keeshapape009317894
  • manftsintyoutounawe
  • taifranedplanchatnia
  • lepnaresptrappe
  • rfanreseepenli
  • hughlosrebucdiecred
  • spouscotnessdislitthen
  • dipullicaldinan
  • MyrtisxMolon
  • darrylpvo8961870
  • briannehalliday5
  • klaravof3128701
  • evk6fqtt2azj
  • elvismceachern453065
  • fannyhildebrant35125
  • ashtonija180031640
  • shanidoerr5427058061
  • 0meedny9xrg0d0
  • 6e0hdj2r2kogx0
  • 8d9svkarb4wsgz
  • raul08163023157533844
  • y8eahc3xyp391q

Subscribe to our newsletter

ইভেন্ট

ছবি ও ভিডিও

Style Setting

Fonts

Layouts

Direction

Template Widths

px  %

px  %